লালমনি এক্সপ্রেসের ইঞ্জিনসহ বগি লাইনচ্যুত, তদন্ত কমিটি গঠন

অনলাইন ডেস্ক :: টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব পাড়ে লালমনিরহাট এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিনসহ তিনটি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনায় পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগ থেকে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল) ভোরের এ ঘটনায় পাকশীর বিভাগীয় ট্রাফিক অফিসার শওকত জামিল মোহশীর নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি গঠন করেন পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মো. খায়রুল আলম।

তিনি বলেন, ‘স্টেশনের পূর্বপাড়ের দুর্বল সান্টিং পয়েন্টে ভুল সিগন্যালের কারণে এ ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। ঘটনার তদন্তে পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগ থেকে পাকশীর বিভাগীয় ট্রাফিক অফিসার শওকত জামিল মোহশীর নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৩ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পূর্বাঞ্চল থেকেও আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলেও জানা গেছে। তারাও পৃথকভাবে তদন্ত করবেন।’ দুপুরের ১টার আগে ট্রেন যোগাযোগ চালু করা সম্ভব হবে বলে জানান তিনি।

পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগ পাকশীর বিভাগীয় নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুল হক জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা লালমনিরহাট এক্সপ্রেস ট্রেনটির ইঞ্জিন বাদেও তিনটি বগি বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব পাড়ে ইব্রাহীমাবাদ স্টেশনের অদূরে ভোর ৪টার দিকে লাইনচ্যুত হয়। এরপর থেকে উত্তরবঙ্গের সব ধরনের ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। আটকা পড়ে সিরাজগঞ্জ, ঈশ্বরদীসহ উত্তরবঙ্গ থেকে ছেড়ে আসা বেশ কয়েকটি ট্রেন। এছাড়া ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস, চিত্রা এক্সপ্রেস, সুন্দরবন এক্সপ্রেস, ঈশ্বরদী লোকালসহ কয়েকটি ট্রেনও আটকা পড়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন হাজার হাজার মানুষ।

পাকশী রেল বিভাগের ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) ওসিম কুমার তালুকদার বলেন, ‘দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের অনেক কর্মকর্তারা ছুটে আসেন। পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগ থেকে উদ্ধারকারী একটি রিলিফ ট্রেন ঘটনাস্থলে এসে লাইনচ্যুত ট্রেনটি উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে একটি বগি উদ্ধার করা হয়। পরবর্তী বগিটি সকাল ১০টার দিকে উদ্ধার করার পর তৃতীয় বগি ও ইঞ্জিনটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।’-বাংলা ট্রিবিউন

Pin It

Comments are closed.