লালমনিরহাটে রেলওয়ের তেল চোররা বেপরোয়া

রেলওয়ে বিভাগ লালমনিরহাটে দীর্ঘদিন ধরে একটি সংঘবদ্ধ চক্র রেলের তেল চুরি করে আসছে। তাদের নামে থাকা মামলায় কারাগারে পাঠালেও পরে জামিনে বেরিয়ে এসে তারা তেল চুরিতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। অভিযোগ রয়েছে, এই তেল চুরির সঙ্গে জড়িত রেলওয়ে লোকোশেডের ফোরম্যান ও রেলের চালকরাও।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) লেবু মিয়া বাদী হয়ে রেলের লোকোশেডের ফোরম্যানসহ ২০ জনের নাম উল্লেখ করে জিআরপি থানায় মামলা করেন। মামলা নম্বর ০৩/২০-০১-০৮। ওই মামলায় তখন আসামিদের গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ।

কিন্তু কিছুদিন পর জামিনে মুক্তি পেয়ে চক্রটি আবার শুরু করে তেল চুরি। এরপর আর নতুন কোনো মামলা না হওয়ায় তেল চোর চক্রটি এখন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

লোকোশেড সূত্র জানায়, সাধারণত রাতের বেলা তেল চুরি হয় বেশি। লালমনিরহাট রেলস্টেশন থেকে ২০০ গজ দূরে লোকোশেডের কাছে ইঞ্জিন থেকে ডিজেল বের করে জারিকেনে ভরা হয়। রাতেই সেগুলো শহরের বিভিন্ন দোকানে বিক্রি করে চক্রটি। করতোয়াসহ কয়েকটি লোকাল ট্রেনের ইঞ্জিন থেকে চুরি করা হয় তেল।

জিআরপি থানার ৫০০ গজের মধ্যে প্রতি রাতে এভাবে রেলের তেল চুরি হলেও তা জানে না বলে দাবি করছে জিআরপি। রেলওয়ে থানার ওসি শংকর রায় বলেন, ‘তেল চুরির ঘটনা আমার জানা নেই। অভিযোগ এলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Pin It

Comments are closed.