লালমনিরহাটে পুলিশের পৃথক অভিযানে মাদকসহ আটক ১০

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না :: লালমনিরহাট পুলিশের পৃথক অভিযানে ৩ দিনে বিপুল পরিমান মাদকসহ ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার সকাল থেকে বুধবার বিকেল পর্যন্ত পুলিশের এ অভিযানে ১৩৭ বোতল ফেন্সিডিল, ৪২ পিচ ইয়াবা, ৬০ পুড়িয়া গাঁজা ও ১০০ পুড়িয়া হেরোইন উদ্ধার করা হয়।

আটককৃদের মধ্যে একজন মহিলাসহ ৮ জন মাদক ব্যবসায়ী ও দুইজন জুয়াড়ু। আটক দুই জুয়াড়–ুকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৫শত টাকা করে ১ হাজার টাকা জরিমানা করে ছেড়ে দেয়া হয় এবং মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে পৃথক ৭টি মামলা দায়ের করে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল প্রেরন করা হয়েছে।

লালমনিরহাট সদর থানার এসআই মোঃ মাহমুদুল হাসান ও ডিবির এস আই মোঃ মিজানুর রহমান মিজানের নেতৃত্বে ৬০ পুড়িয়া গাঁজা ও ৯০ বোতল ফেন্সিডিলসহ ০৩ জন, আদিতমারী থানার এএসআই সাইফ বিল্লাহ ও এএসআই মোঃ আবু সায়েম সরকারের নেতৃত্বে ১২ বোতল ফেন্সিডিল ও ২০ পিচ ইয়াবাসহ ০৫ জন, কালীগঞ্জ থানার এএসআই মোঃ আবু সাঈদ মন্ডলের নেতৃত্বে ২৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার ও পাটগ্রাম থানার এসআই দুলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে ১শ পুড়িয়া হিরোইন ও ২২ পিস ইয়াবাসহ স্বামী-স্ত্রীকে আটক করা হয়। আটক মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে পৃথক ৭টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

লালমনিরহাট পুলিশ এসএম রশিদুল হক জানান, মাদকের কুফল এবং আইনের প্রয়োগ সমন্ধে ফেষ্টুন, ব্যানার এবং মিডিয়ায় প্রচারের মাধ্যমেই মাদককে হ্রাস করা সম্ভব। এজন্য তিনি সাংবাদিকদের তাদের লেখনীর মাধ্যমে বিষয়টি তাদের নিজ নিজ পত্রিকা/অনলাইন ও টেলিভিশনে বিষয়টি তুলে ধরার অনুরোধ জানান। এছাড়া জেলা থেকে শুরু করে ওয়ার্ড পর্যায়ে জনসচেতনাতা বৃদ্ধি হলে তবেই মাদক ব্যবসা বন্ধ হবে। যেহেতু মাদকমুক্ত সমাজ আমাদের সবার কাম্য। তাই আসুন, আমরা সবাই মাদক ও নেশা পরিহার করে সামাজিক সব অবক্ষয় ও নানাবিধ মরণব্যাধি থেকে দেশ ও জাতির আত্মরক্ষায় জেলার প্রতিটি মানুষ ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন একসঙ্গে মাদকের ভয়াবহতা ও কুফল সম্পর্কে সমাজের সকলের কছে তুলে ধরি। তবেই মাদকমুক্ত সুন্দর জীবন ও শান্তিময় সমাজ গড়া সম্ভব।

তিনি বলেন, লালমনিরহাটে যোগদানের পর থেকেই তিনি মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে এ পর্যন্ত কয়েকশত মাদক ব্যবসায়ীসহ তাদের বিরুদ্ধে শত শত মামলা দায়ের করা হয়েছে। তিনি এজন্য তার পুলিশের দায়িত্বরত কর্মকর্তা এবং মাদক ব্যবসায়ীদের ধরতে যারা সহযোগীতা করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এরপরেও পুলিশের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান। তিনি জেলাকে মাদক মুক্ত করতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।

Pin It

Comments are closed.