লালমনিরহাটের আলোচিত শ্রমিকলীগ নেতা বুলেট হত্যা মামলার অভিযোগপত্র দাখিল

IMG_২০১৬০৮০৪_১৬১০৪৪

 
মো: লাভলু শেখ : লালমনিরহাটের আলোচিত শ্রমিকলীগ নেতা ফখরুল ইসলাম বুলেটকে (৩৫) হত্যার প্রধান আসামী আমিনুল খান (৪২)সহ ১০জনের বিরুদ্ধে লালমনিরহাট অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমল অঞ্চল-১এর আদালতে পুলিশ অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ২০১৫ ইং সালের ২৭জুন সদর উপজেলার মহেগন্দ্রনগর বাজারের ইজারাদার ও বাফা’র সার গোডাউনের লোড-আনলোড’এর কমিশনের টাকা ভাগ-বাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে বুলেটকে পরিকল্পিতভাবে লালমনিরহাটের শীর্ষ সন্ত্রাসী আমিনুল খান রাতে মোবাইল ফোনে ডেকে এনে মহেন্দ্রনগর হাট খান মার্কেট সংলগ্ন তার অফিসে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে তার প্রত্যক্ষ মদদে ও উপস্থিতিতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। এ হত্যার ঘটনায় গত বছরের ২৮জুন আমিনুল খানসহ ১৫জনকে আসামী করে নিহত বুলেটের পিতা এনামুল হক মাস্টার বাদী হয়ে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকতা প্রদীপ কুমার রায় তদন্তপূর্বক গত ১ আগস্ট সোমবার এজাহারভুক্ত ১৫জন আসামীর মধ্যে ৬জনের নাম বাদ দিয়ে একরামুল খান একরা (৪০), আমিনুল খানের ছোট ভাইকে ১০নং আসামী হিসেবে অভিযুক্ত করে বিজ্ঞ আদালতে ৩০২/৩৪ দণ্ড বিধি মোতাবেক অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন।

তদন্ত প্রতিবেদনে বাদ পড়া আসামীরা হলো, মিজানুর রহমান (৩৫), আপেল (২৭), মতিয়ার রহমান (৪৫), মোকছেদুল (৪০), ফারুক ফটিক (মৃত) ও ড্রাইভার রতন (৩৫)।

উল্লেখ্য, শীর্ষ সন্ত্রাসী আমিনুল খানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী হামলা, হত্যা, জমি দখল, নারী নির্যাতন ও অপহরণসহ ১৪টি মামলা রয়েছে। তার সহযোগী ক্যাডাররাও একাধীক মামলার আসামী বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাযায়।

গতকাল বৃহস্পতিবার মামলার বাদী এনামুল হকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি লালমনি প্রতিদিনকে এ মামলার বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হন নি।

অপরদিকে কঠোরভাবে পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে পেশ করায় মহেন্দ্রনগর এলাকার হাজার হাজার সাধারণ মানুষ স্বস্থি পেয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। নিহত ফখরুল ইসলাম বুলেট লালমনিরহাট সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের চিনিপাড়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এনামুল হক সরকারের ২য় পুত্র।

Pin It

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।