ভারতে মাদকসেবনে পাচার হচ্ছে ২ টাকার নোট

অনলাইন ডেস্ক: বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে চোরাইপথে ভারতে পাচার হচ্ছে বাংলাদেশের ২ টাকার নোট। পাচার হওয়া এ সব নোট প্রতিটি বিক্রি হচ্ছে ৫ রুপিতে।

অন্য সব ব্যবসার চেয়ে নোট পাচারে বেশি লাভ হওয়ায় এ ব্যবসায় ঝুঁকে পড়েছে চোরাচালানীরা। ইতিমধ্যে বাংলাদেশি ২ টাকার নোটসহ ২ ভারতের নাগরিককে সীমান্ত এলাকা থেকে আটক করেছে বিজিবি।

হেরোইন-ইয়াবার মত মরণ নেশার কাজে ব্যবহার হচ্ছে বাংলাদেশি ২ টাকার নতুন নোট। এ কারণে বেনাপোল সীমান্তের চোরাইপথ এবং আন্তজাতিক চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে পাচার হচ্ছে দুই টাকার নোট।

হেরোইন ও ইয়াবা আগুনের তাপে গরম করলে তরল পদার্থে পরিণত হয়। এ সময় ওই তরল পদার্থ থেকে ধোয়া বেরিয়ে আসে। সেই ধোয়া পান্নী বা পাইপের মাধ্যমে সেবন করে মাদকসেবীরা। মূলত হেরোইন-ইয়াবা সেবনের পাইপ তৈরিতে আগে ব্যবহৃত হতো সিগারেটের প্যাকেটের মোটা কাগজ।কাগজের পাইপ অল্প তাপেই পুড়ে যায়। এক বার নেশা করতে হলে তিন/চার বার পাইপ পাল্টাতে হয়।বাংলাদেশি ২ টাকার নতুন নোট দিয়ে পাইপ তৈরি করলে সহজে পোড়ে না। কারণ এ নোট উন্নত মানের কাগজে তৈরি। তাছাড়া নতুন নোট সহজে পানিতে ভিজে যায় না এবং গরমের পুড়ে ছাই হয় না। তাই নেশাখোরদের কাছে বাংলাদেশি ২ টাকার নোট খুবই প্রিয়।

বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারতে বাংলাদেশি ২ টাকার নোট পাচার হওয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে যশোর -২৬ বিজিবি ব্যাটালিয়নের কমান্ডার লে. কর্নেল জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘ভারতে নেশার কাজে বাংলাদেশি ২ টাকার নোট ব্যবহার হওয়ায় পাচার হচ্ছে। ইতিমধ্যে আমরা টাকাসহ ২ জনকে আটক করেছি। পাচার রোধে সীমান্তের প্রতিটি পোস্টে বিজিবি সদস্যদের সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে।-ইত্তেফাক

Pin It

Comments are closed.