বাংলাদেশের মানুষ জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষ জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে। জঙ্গিরা নিজেরাও তাদের ভুল বুঝতে পেরে ফিরে আসতে শুরু করেছে। তওবা করছে। খুনিদের সবাই ঘৃণা করছে। এমনকি তাদের ডেডবডি তার পরিবারের লোকজন নিতে চাচ্ছে না।

শনিবার বিকালে রংপুর পুলিশ লাইন মাঠে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সর্বধর্মীয় সম্প্রীতি সমাবেশে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোরে হিযবুত তাহরীরের তিন সদস্য অনুতপ্ত হয়ে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। তারা হলেন- হিযবুত তাহরীরের মোশরেফ সদস্য যশোর শহরতলীর খোলাডাঙ্গা কদমতলা এলাকার মৃত শফিয়ার রহমানের ছেলে সাদ্দাম ইয়াসির সজল (৩২), সংগঠনের সাবাব সদস্য ধর্মতলা মোড় এলাকার আবদুস সালামের ছেলে রায়হান আহমেদ (২০) ও যশোর শহরতলীর কদমতলা এলাকার একেএম শারাফত মিয়ার ছেলে মেহেদী হাসান পলাশ (২০)। তারা জানান, খুনের সঙ্গে জড়িত থেকে তারা ভুল করেছেন। নিজের ভুল বুঝতে পেরে তারা অনুতপ্ত। পুলিশের সহযোগিতায় তার স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘৭৫ এর পর রগ কাটার মাধ্যমে শিবির যে সন্ত্রাস শুরু করেছিল এরই ধারাবাহিকতায় আজকের জঙ্গিবাদ। এসব মানুষ খুন ইসলামের জন্য নয়, বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে থমকে দিতে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘কোনো ধর্মে হত্যার স্থান নেই। ধর্মের বাণী হলো, মানুষকে সেবা করতে হবে, ভালোবাসতে হবে, মানবতার জন্য কাজ করতে হবে। বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। এখানে কোনো হানাহানি করতে দেয়া হবে না।’

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘বাংলাদেশে আইএসের কোনো অস্তিত্ব নেই, তাদের কোনো সাংগঠনিক তৎপরতাও নেই। আছে জেএমবি হরকাতুল জেহাদ নামের দেশীয় জঙ্গি। এর পেছনে মদদ দিচ্ছে সেই জামায়াত-শিবির। আমরা সেই জঙ্গি নির্মূলে কাজ করছি।’

তিনি বলেন, ‘ইসলামকে অকার্যকর ধর্ম দেখাতে চেষ্ট চালানো হচ্ছে। জঙ্গি এবং মানুষ হত্যা ইসলাম সমর্থন করে না। ভ্রাতৃত্বের ধর্ম ইসলাম, মানবতার ধর্ম ইসলাম। যারা খুন করছে, হত্যার জন্য উদ্বুদ্ধ করছে এগুলো ইসলামের জন্য নয় বরং বাংলাদেশকে ধমকে দেয়ার জন্য। ইসলামকে কোনো কলঙ্ক হতে দেয়া হবে না। আমরা মানুষ হত্যা বন্ধ করবো। সেজন্য সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।’

একই অনুষ্ঠানে আইজিপি একেএম শহিদুল হক বলেন, ‘জঙ্গিদের সংখ্যা বেশি নয়। যেভাবে মানুষের মধ্যে সচেনতা সৃষ্টি হয়েছে তাতে জঙ্গি নির্মূল এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।’

তিনি বলেন, ‘জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে, আপনারা সোচ্চার হলেই আমরা দেশকে জঙ্গিমুক্ত করতে পারবো। ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে জেহাদের অপব্যাখ্যা দিয়ে তারা মানুষ খুন করছে। জঙ্গিরা ইসলামের শত্রু, মানবতার শত্রু।’

নিজের সন্তান, পরিবার এবং স্বজনদের প্রতি খেয়াল রাখার পাশাপাশি জঙ্গি নির্মূলে দেশবাসীকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান পুলিশ প্রধান।

রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি টিপু মুন্সি, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, রংপুর সিটি মেয়র সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু, শোলাকিয়া ঈদগাহের ইমাম মাওলানা ফরীদউদ্দীন মাসঊদ, রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কাজী হাসান আহমেদ, মাওলানা আজহারুল ইসলাম, মাওলানা আলী আজগর, এমপি আবুল কালাম আজাদ, এমপি হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Pin It

Comments are closed.