নিজের জিভ কেটে দেবতাকে উৎসর্গ করলেন ছাত্রী!

 

আমরা নিজেদের ইচ্ছাপূরণের জন্য কত রকম মানত-ই না করে থাকি! পরীক্ষায় যাতে ভাল রেজাল্ট হয়, ভাল চাকরি হয়— এমন কত কিছু ইচ্ছাপূরণের ‘দাবি’তে মন্দির-মসজিদে ছুটি। দেবতাকে অনেক কিছুই উত্সর্গ করে থাকি আমরা। কিন্তু কখনও শুনেছেন নিজের জিভ কেটে দেবতাকে উত্সর্গ করতে! হ্যাঁ, এমনটাই করেছেন মধ্যপ্রদেশের এক কলেজ ছাত্রী।

কেন এমন ভয়ঙ্কর সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি?

আরতি দুবে নামে ওই ছাত্রীর দাবি, তাঁর সমস্ত ইচ্ছাপূরণের জন্য দেবতা কালী তাঁকে স্বপ্ন দেখিয়েছেন।
কী সেই স্বপ্ন?

আরতি জানিয়েছেন, জিভের বিনিময়ে তাঁর সমস্ত ইচ্ছা পূরণ হবে, স্বপ্নে বলেছিলেন দেবী। তিনি আর স্থির থাকতে পারেননি। সোজা মন্দিরে যান। মন্দিরে তখন সবাই পুজোয় ব্যস্ত ছিলেন। একটা ব্লেড বের করে সকলের সামনে নিজের জিভ কেটে ফেলেন আরতি। আশ্চর্যের বিষয় তাঁকে এ রকম করতে দেখেও নাকি কেউ বাধা দেননি। এমনকী রক্তাক্ত অবস্থায় মন্দিরে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যাওয়ার পর কেউ তাঁকে হাসপাতালেও নিয়ে যাননি। প্রায় পাঁচ ঘণ্টা অচৈতন্য অবস্থায় মন্দিরে পড়ে ছিলেন তিনি।

এখানেই শেষ নয়। জ্ঞান ফেরার পর পুজোর বাকি রীতি-নীতিও সারেন ওই ছাত্রী।

মেয়ের এ রকম কাণ্ড-কীর্তি জেনে পরিবারের সকলেই বেশ ভয় পেয়ে যান। আরতির ভাই শচীন বলেন, “এক জন শিক্ষিত মানুষ হয়েও কী ভাবে এত কুসংস্কারাচ্ছন্ন হল সেটাই ভেবে শিউরে উঠছি।” -আনন্দবাজার

Pin It

Comments are closed.