নাটোরে আগুনে ঝলসানো অজ্ঞাত তরুণীর বাড়ী লালমনিরহাটে

অনলাইন ডেস্ক : নাটোরের সিংড়ায় উদ্ধার হওয়া আগুনে ঝলসানো যুবতীর লাশের পরিচয় নিশ্চিত করেছে থানা পুলিশ। নিহত যুবতী লালমনিরহাট জেলার মোস্তফি গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে নার্স রেজেনা পারভীন রুপালী (২২)। এদিকে নিহত ওই যুবতীর প্রেমিক স্বামী শাহমিম হোসেনকে (২৭) ফুলবাড়ী এলাকা থেকে আজ সোমবার আটক করেছে সিংড়া থানা পুলিশ।

সিংড়া থানার এসআই দেবব্রত দাস জানান, নিহত যুবতী রেজেনা পারভীন রুপালী বগুড়া মেরিস্টোপ ক্লিনিকে নার্সের চাকরির সুবাদে ফুলবাড়ী এলাকার যুবক শাহমিমের সাথে পরিচয় হয়। পরে তাদের পরিচয় থেকে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে ২০১৪ সালে তাদের বিয়ে হয়। কিছুদিন পর বিবাহ বিচ্ছেদ, পরে আবার তাদের নিজেদের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো বিয়ের ঘটনা ঘটে। তাদের সংসারে চলতে থাকে মনোমালিন্য। এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার বগুড়া থেকে ওই যুবতী নিখোঁজ হয়। গতকাল রোববার নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের বাঁশের ব্রীজের ভাদিগাড়ী এলাকার একটি ধানের জমি থেকে অজ্ঞাত যুবতীর আগুনে ঝলসানো লাশ উদ্ধার করা হয়।

পরে বিভিন্ন থানার মেসেজ ও মিডিয়ার খবরে লালমনিরহাট সদর উপজেলার মোস্তফি (ধুমের কুঠি) গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক ওই অজ্ঞাত যুবতীকে নিজের মেয়ে লাশ নিশ্চিত করে রোববার রাতেই সিংড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সিংড়া থানার ওসি নাসির উদ্দিন মন্ডল জানান, হত্যাকান্ডের দায়ে নিহত যুবতীর প্রেমিক স্বামীকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। ধারণা করা হচ্ছে নিহত যুবতীর প্রেমিক স্বামী শাহমিম হোসেনই তাকে এনে হত্যার পর পরিচয় গোপন করতে তার লাশ আগুন দিয়ে ঝলসে দিয়েছে। সূত্র: নয়াদিগন্ত

Pin It

Comments are closed.