দাফনের ৬ দিন পর প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তার লাশ উত্তোলন

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না :: দাফনের ৬ দিন পর লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার সাপ্টিবাড়ি ইউনিয়নের খাতাপাড়া এলাকার নিহত প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ওসমান গণি রাজুর (৪০) মরদেহ উত্তোলন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজস্ব পারিবারিক কবরস্থান থেকে মরদেহটি উত্তোলন করা হয়। নিহত ওসমান গণি রাজু ওই এলাকার আফতাব উদ্দিনের ছেলে। তিনি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেশ্বর রায় জানান, গত ৪ নভেম্বর শনিবার প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ওসমান গণি রাজু কর্মস্থল গোবিন্দগঞ্জ থেকে বাসযোগে রংপুরে ফিরছিলেন। এ সময় ওই বাসে অজ্ঞান পার্টির একটি চক্র তাকে অজ্ঞান করে পকেটের টাকা মেরে পালিয়ে যায়। পরে বাসের লোকজন আহত অবস্থায় রাজুকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় ওই দিন রংপুর কোতয়ালী থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়। কিন্তু পারিবারিক চাপে সেই সময় ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে না পাঠিয়ে গ্রামের বাড়ির পারিবারিক করবসস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদিতমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসাদুজ্জামানের উপস্থিতিতে ৬ দিন পর মরদেহটি উত্তোলন করে লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লালমনিরহাট সহকারী পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম, আদিতমারী থানার উপ-পরিদরর্ক (এসআই) শহীদুল ইসলাম, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রংপুর কোতয়ালী থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) মামুন মিয়া ও নিহতের পরিবারের সদস্যরা।

Pin It

Comments are closed.