কুড়িগ্রামে পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রী খুন, স্বামী পলাতক

অনলাইন ডেস্ক :: পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে কুড়িগ্রাম সদরের পলাশবাড়ির হালমাঝি পাড়ায়। এর পর থেকে ঘাতক স্বামী মজিদুল ইসলাম (৩০) পলাতক। আজ মঙ্গলবার সকালে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় চার বছর আগে স্থানীয় বাসিন্দা রিকশাচালক এনতাজ আলীর মেয়ে মিনারা বেগম (২৫) এর সাথে ভাগিনা মজিদুল ইসলামের (৩০) বিয়ে হয়। তাদের ঘরে তিন বৎসরের মায়া নামে একটি কন্যাসন্তান রয়েছে। দীর্ঘদিন থেকে মজিদুল বিভিন্ন মেয়ের সাথে পরকীয়ায় লিপ্ত থাকায় প্রায় সময় স্ত্রী মিনারা বেগমের সাথে কলহ লেগে থাকত। এ নিয়ে পারিবারিকভাবে সালিস করা হয়। আজ মঙ্গলবার সকালে বাড়ির সদস্যরা মিনারা ও তার স্বামীকে ডাকাডাকি করলে কেউ ভেতর থেকে জবাব দেয় না। এ সময় ঘরের দরজা ধাক্কা দিয়ে ভেতরে ঢুকে ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় মিনারার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পাওয়া যায়। পরে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি এস এম আব্দুস সোবহান বলেন, এটি হত্যা না আত্মহত্যা তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। ময়নাতদন্ত শেষে নিশ্চিত হওয়া যাবে। লাশটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে এ ঘটনার পর থেকে নিহতর স্বামী পলাতক রয়েছে। সূত্র: কালেরকন্ঠ

Pin It

Comments are closed.