একজন নারী জীবনে ৭ পাউন্ড লিপস্টিক খান

অনলাইন ডেস্ক :: লিপস্টিককে নারী সৌন্দর্যের অন্যতম প্রসাধনী হিসেবে বিবেচনা করা হয়। অনেক নারী আছেন যারা লিপস্টিক ছাড়া ঘরের বাইরেই বের হতে পারেন না। তবে শুধু লিপস্টিক ঠোটে কেবল দিলেই যে শেষ, তা কিন্তু নয়। ব্যবহারিত লিপস্টিকের একটি বড় অংশ মুখ দিয়ে পাকস্থলীতে চলে যায়। পেটে যাওয়া এই লিপস্টিকের পরিমাণ কিন্তু কম না।

জানেন সে পরিমাণ কতখানি? বিভিন্ন গবেষণা এসেছে, একজন নারী এক জীবনে নূন্যতম ৭ পাউন্ড লিপস্টিক খেয়ে ফেলেন। অবিশ্বাস্য হলেও ঘটনা সত্য।

দুই থেকে তিন রকমের মোম, উল গ্রিজ, পেট্রোলিয়াম দিয়ে তৈরি হয় লিপস্টিক। অজান্তে এই রাসায়নিক উপাদানকে নিয়মিত খাচ্ছেন নারীরা। এটা নিয়ে কোনও বিশেষ ভ্রুক্ষেপও রয়েছে বলে মনে হয় না।

২০০৪ সালে প্রকাশিত সমীক্ষা বলা হচ্ছে, বাজারের ২৮ শতাংশ লিপস্টিকে রয়েছে এমন রাসায়নিক, যা থেকে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিভিন্ন ধরনের লিপস্টিকে ব্যবহৃত প্রায় ১০ হাজার রাসায়নিক যা মানব শরীরের পক্ষে উপযোগী নয়। যেসব নারীরা সপ্তাহে ৩ দিন লিপস্টিক ব্যবহার করেন, তাঁদের লুপাস নামের এক চর্মরোগের সম্ভাবনা ৪০ শতাংশ বেড়ে যায়।

প্রখ্যাত কসমেটিকস ব্র্যান্ডগুলির তৈরি লিপস্টিকে সিসার পরিমাণ অনেক সময়ে বিপদসীমার ওপরে থাকে। শুধু ত্বকের মাধ্যমে লিপস্টিক পেটে প্রবেশ করে, এমন নয়। লিপস্টিকের বেশিরভাগ পেটে চলে যায়।

হাফিংটন পোস্টে ২০১৬ সালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, সারাজীবন লিপস্টিক ব্যবহারকারী একজন নারী ৭ পাউন্ড লিপস্টিক খেয়ে ফেলেন। সেটা চা-কফি, মদ কিংবা অন্যান্য খাবার খাওয়ার সময় হতে পারে।

ক্যালিফোর্নিয়া থেকে প্রকাশিত আরেকটি ইউরোপীয় গবেষণায় বলা হয়েছে, প্রতিদিন ২৪. ৬ মিলিগ্রাম খেয়ে ফেলেন একজন নারী।

Pin It

Comments are closed.