আলাদা মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের

বাহাত্তরের সংবিধানের আলোকে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের নিরাপত্তা ও সম–অধিকার প্রতিষ্ঠা, আলাদা মন্ত্রণালয় গঠনসহ ১১ দফা দাবি পূরণের আহ্বান জানিয়েছে ‘শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ-বাংলাদেশ’।

সোমবার বেলা ১১টায় রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানান সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

শ্রী বিষ্ণুর মানব অবতার শ্রী কৃষ্ণের জন্মতিথি উপলক্ষে শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ-বাংলাদেশ এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করে।

সংবাদ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি দেবাশীষ পালিত বলেন, ১৯৪৭ সালের পরে এদেশে আমরা অনেক ত্যাগ তিতিক্ষার মধ্য দিয়ে সুখ-দুঃখ সকলের সঙ্গে ভাগ করে বাংলাদেশের মাটি আকড়ে পড়ে আছি। কারণ এটা আমাদের জন্মভূমি। ধর্মের প্রতি অবমাননা করে পৃথিবীর কোথাও সুস্থ ও স্থায়ী পরিবেশ সৃষ্টি হতে পারে না। আমাদের দাবি বাহাত্তরের সংবিধান বাস্তবায়ন হোক এবং এর আলোকে আমাদের নিরাপত্তা ও সমঅধিকার প্রতিষ্ঠা করা হোক।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বেদখল হওয়া ও দেবোত্তর সম্পত্তি উদ্ধারে আইন প্রণয়ন করা, দুর্গাপূজায় চার দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করা, হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টকে হিন্দু ফাউন্ডেশন করা, অর্পিত সম্পত্তি সংশোধনী আইন বাস্তবায়নসহ ১১টি দাবি তুলে ধরেন সংগঠনের সভাপতি।

তিনি আরও বলেন, এবারও সারাদেশে যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় কৃষ্ণের জন্মতিথির স্মারক শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী পালিত হবে। এ উৎসবে থাকবে শোভাযাত্রা, মহানাম সংকীর্ত্তন, ধর্মীয় আলোচনা সভা, বস্ত্র বিতরণ, লীলা প্রদর্শনী ও মহাপ্রসাদ বিতরণসহ বিভিন্ন কর্মসূচি। বাংলাদেশের সর্বপ্রথম শ্রী শ্রী জন্মাষ্টমী পালনকারী জেলা চট্টগ্রামে নেওয়া হয়েছে চার দিনের কর্মসূচি।

সংবাদ সম্মেলনে ২৫ আগস্ট শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন উপলক্ষে জাতি-ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে সবাইকে শুভেচ্ছা ও দিবসটি উপলক্ষে দেশব্যাপী ৫০টিরও বেশি অনুষ্ঠানে সবাইকে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের সাবেক সভাপতি শ্রী রমেশ চন্দ্র ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট চন্দন তালুকদার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট তপন কান্তি দাশ, কার‌্যকরী সভাপতি গৌরাঙ্গ দে, সংগঠনের ঢাকা মহানগরের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সহদেব বৈদ্য।

Pin It

Comments are closed.