আদিতমারীতে শিশু অপহরনের অভিযোগে আটক-১

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না :: লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় তৃতীয় শ্রেণীর শিশুকে অপহরন চেষ্টার অভিযোগে সাইফুল ইসলাম (৬০) নামে এক পাচারকারীকে আটক করেছে পুলিশ। আটক সাইফুল ইসলাম উপজেলার আদিতমারী ডিগ্রী কলেজ পাড়ার মৃত আবদার রহমানের ছেলে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আদিতমারী থানায় সাইফুল ইসলাম ও তার ছেলের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সোমবার বিকেলে উপজেলার বসিনটারী গ্রামের তোজাম্মেল হকের ছেলে ভাদাই মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্র মাজেদুল ইসলাম মামুন (৯) বিদ্যালয় মাঠে সহপাঠিদের সাথে খেলা ধুলা করছিল। খেলা শেষে বাড়ি ফেরার পথে দুজন অপরিচিত ব্যক্তি পিছন দিক থেকে মুখে রুমাল দিয়ে চেপে ধরে অপহরন করেন শিশু মামুনকে। এরপর সজ্ঞাহীন হয়ে পড়লে শিশু মামুন আর কিছুই বলতে পারেনি।

সন্ধ্যা পেরিয়ে রাত হলেও ছেলে বাড়ি না ফেরায় বিভিন্ন স্থানে খোঁজা খুজি শুরু করে তার পরিবারের লোকজন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে মামুনের জ্ঞান ফিললে সে দেখতে পায় দরজা জ্বানালহীন টিনসেড একটি ঘরে বন্দি। পরে বেড়া ভেঙ্গে পালিয়ে আসতে সক্ষম হয় স্কুল ছাত্র মামুন।

বাড়ি ফিরে মামুন ঘটনার বর্ননা দিলে স্থানীয়রা তাকে সাথে নিয়ে ওই বাড়িতে গিয়ে দেখতে পান বাড়িটি একদম নির্জন স্থানে। আদিতমারী ডিগ্রী কলেজ পাড়ার ওই বাড়িটির মালিক সাইফুল ইসলামের ছেলে মাদক ব্যবসায়ী এরশাদ মিয়া। এ সময় বাড়িতে লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে এরশাদ মিয়া পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা ওই বাড়িতে থাকা এরশাদের বাবা সাইফুল ইসলামকে আটক করে থানা পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ঘটনায় স্কুল ছাত্র মামুনের বাবা তোজাম্মেল হক বাদি হয়ে বাড়ির মালিক এরশাদ ও তার বাবা সাইফুলের নাম উল্লেখ করে আদিতমারী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

আদিতমারী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেশ্বর রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, স্থানীয়দের হাতে আটক সাইফুলকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। অপর আসামী তার ছেলে এরশাদকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Pin It

Comments are closed.