অন্তর্বাস চুরি করে বিপাকে সন্ন্যাসী!

অনলাইন ডেস্ক :: নারীদের অন্তর্বাস চুরি করে বিপাকে পড়েছেন এক থাই সন্ন্যাসী। প্রতিদিনের মতো বাড়ির আঙ্গিনায় অন্তর্বাস রোদে দিয়েছিলেন ৪০ বছরের কিট্টিসাক।

কিন্তু বিকেলে গিয়ে দেখেন সেখানে অন্তর্বাসগুলো নেই। খুব চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন ওই বাড়ির বাসিন্দা কিট্টিসাক।
এত বছর ধরে থাইল্যান্ডে রয়েছেন। কখনও এমন অদ্ভুত সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়নি। স্ত্রী ও কন্যাও হতবাক, এমনও হতে পারে? এতকিছু থাকতে হঠাৎ অন্তর্বাসগুলি চুরি হতে যাবে কেন? চুরি করলই বা কে? কিছুতেই এ প্রশ্নের উত্তর মিলছিল না। বাধ্য হয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন থাইল্যান্ডের এই বাসিন্দা।

কিন্তু তদন্তে নেমে পুলিশও অবাক। দেখা যায় চোর আর কেউ নন এক বৌদ্ধ সন্ন্যাসী। সিসিটিভি ফুটেজে স্পষ্ট দেখা যায় নীল রঙের এর ব্যাগ নিয়ে কিট্টিসাকের বাড়ির সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন ওই সন্ন্যাসী।

অন্তর্বাস মেলা দেখেই থেমে যান। তারপর ভাল করে এদিক-ওদিক দেখে নেন, কেউ কোথাও আছে কি না। কাউকে না দেখে খুব সাবধানে একের পর এক অন্তর্বাসগুলি তুলে নেন। সেগুলি নিজের নীল ব্যাগে ঢুকিয়ে নেন। তারপর আবার একবার দেখে নেন কেউ দেখতে পাচ্ছে কি না। কাউকে না দেখে সোজা যেদিক থেকে এসেছিলেন সেদিকেই ফেরত চলে যান। কিন্তু একজন সন্ন্যাসী এমন কাজ কীভাবে করতে পারেন? নারীদের অন্তর্বাসেরই বা কী প্রয়োজন পড়তে পারে তাঁর।

জানা যায়, স্থানীয় বৌদ্ধ মন্দিরে থাকেন ওই সন্ন্যাসী। চুরির সেই খবর মঠ পর্যন্ত পৌঁছাতে বেশি সময় লাগেনি। খবর পাওয়া মাত্রই, তরুণ সন্ন্যাসীকে মন্দির থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। কিন্তু কেন তিনি এমন কাজ করলেন? এ প্রশ্নের উত্তর এখনও জানা যায়নি। সূত্র: মেট্রো.কম

Pin It

Comments are closed.